অভিনয় জগতের সাথে যুক্ত অভিনেতা এবং অভিনেত্রী রা আমাদের জীবনের প্রতিটি অংশে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে থাকে । ঠিক তেমনই বাংলার অভিনয় জগতে একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রী হলেন সন্ধ্যা রায় । পঞ্চাশ দশকে অভিনয় জগতে পদার্পণ করেন এই অভিনেত্রী । বাংলার অভিনয় জগতে উন্নতির শিখরে পৌঁছাতে তার অবদান অনেকখানি সে কথা আমরা প্রত্যেকে জানি।

সন্ধ্যা রায় একজন ভারতের পশ্চিম বঙ্গের বাংলা চলচ্চিত্র শিল্পের একজন অভিনেত্রী। তিনি ১৯৬০ থেকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত রোমান্টিক বাংলা সিনেমার অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন। অভিনেত্রীদের পথিকৃৎ হিসেবে, তিনি সফলভাবে বিভিন্ন চরিত্র এবং সহ-অভিনেত্রী যেমন ভাবী হিসেবে অভিনয় করেন। তিনি সহ-অভিনেত্রী হিসেবে প্রথম সিনেমায় কাজ করেন তাপস পালের সাথে দাদার কীর্তি অথবা শ্রীমান পৃথ্বীরাজ সিনেমায়।তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র হল “মামলার ফল” যেখানে সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় অভিনয় করেছিলেন।

তার অসামান্য অভিনয় কৌশলের তিনি অনায়াসে যে কোন সিনেমার চরিত্রের সাথে সহজেই খাপ খাওয়াতে পারতেন, তার সমালোচক কর্তৃক প্রসংশিত সিনেমাগুলোর মধ্যে “সত্যজিত রায়ের” “অশনী সংকেত” এবং তরুণ মজুমদারের “থাগিনি” এবং পুরোদস্তুর বাণিজ্যিক চলচ্চিত্র যেমন “বাবা তারকনাথ”। তবে এখন আধুনিক সময়ে তাকে আর বেশি বড় পর্দায় দেখা যায় না । নিজেকে ঘরব-ন্দি করে নিয়েছিলেন অভিনেত্রী ।সম্প্রতি জানা যাচ্ছে যে তার শা-রী-রিক অ-সুস্থতার জন্য তিনি ভর্তি রয়েছেন বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হা-স-পাতালে ।

শ-রীরে ব্য-থা জ্ব-র এবং শ্বা-সক-ষ্ট জনিত স-মস্যা থাকার জন্য তাকে বাড়িতে ফেলে রাখা হয়নি বরং সরাসরি ভর্তি করে দেওয়া হয়েছে হা-স-পাতালে । সেখানে এখন চি-কিৎ-সাধীন রয়েছেন সন্ধ্যা রায় । ল-ড়াই লড়ছেন জীবনের সাথে । করোনার উপসর্গ তার শরীরে থাকার জন্য তাকে আপাতত আই-সো-লেশনে রাখা হয়েছে ।এমনটাই সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে । এই খবর প্রকাশ সে আসাতে তার অনুগামীরা তার সুস্থতা কামনা করছেন ।পুনরায় তিনি যেন আবার খুব শিগগিরই সুস্থ স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারেন তার জন্য ইতিমধ্যে প্রার্থনা শুরু করে দিয়েছেন অনেকে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.