এবার ইংল্যান্ডে করোনাকালীন সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্যবিধি না মানলে ১৩ হাজার ডলার জরিমানা গুনতে হবে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১১ লাখ ৫ হাজার টাকার সমান।

আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে দেশটিতে এই বিধান কার্যকর করা হবে বলে গতকাল শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) এই নির্দেশনার কথা জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য দপ্তর। জরিমানা শুরু হবে ১ হাজার ইউরো বা ৮৫ হাজার টাকা থেকে।

শনিবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, দেশটিতে করোনা সংক্রমণের ২য় দফা চলছে। এজন্য, দেশটির উত্তর-পশ্চিম, উত্তরাঞ্চল আর মধ্য ইংল্যান্ডের লাখ লাখ মানুষকে সংক্রমণ রোধে আরোপিত নতুন করে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হচ্ছে।

জনসন বলেন, এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে করা যুদ্ধ জয়ের সবচেয়ে ভালো ও উত্তম উপায় হল প্রত্যেকে ব্যক্তি উদ্যোগে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা। আমরা চাই ভাইরাসটির বিস্তার নিয়ন্ত্রণে আনতে। আমরা চাই না স্বাস্থ্যঝুঁকিতে থাকা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হোক।

২৮ সেপ্টেম্বর থেকে কারও শরীরে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়লে তাকে অবশ্যই নিজ উদ্যোগে আইসোলেশনে থাকতে হবে।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে দেশটির স্বাস্থ্য সচিব বলেছেন, প্রত্যেকে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে দেশজুড়ে আর লকডাউন কার্যকর করার দরকার হবে না।

শনিবার দেশটিতে করোনায় নতুন করে ৪ হাজার ৪২২ জন আক্রান্ত ও ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বর্তমানে দেশটিতে কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে একা থাকলে তাকে ১০ দিনের সেলফ আইসোলেশন মেনে চলতে হয়। আর যদি করোনা সনাক্ত ব্যক্তি অন্যদের সঙ্গে বসবাস করেন তাহলে তাকে অবশ্যাই ১৪ দিনের আইসোলেশন মেনে চলতে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.