বল হাতে কৃপণতা দেখানোর পর ব্যাট হাতে অপরাজিত থেকে কলকাতাকে কোয়ালিফাইয়ে তুললেন সাকিব আল হাসান।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

প্লে-অফে সাকিব-নারাইনদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরকে ৪ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালের পথে এগিয়ে গেল নাইটরা।

শারজাহতে আগে ব্যাট করতে নেমে এদিন ৭ উইকেটে ১৩৮ রান সংগ্রহ করে কোহলির দল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২ বল আগে ৪ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় কলকাতা।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

কলকাতার ৬ উইকেট পতনের পর সাকিব যখন ব্যাটিংয়ে নামেন দলের জয়ের জন্য তখন রান দরকার ছিল ১৪ বলে ১৩। সেই সমীকরণ শেষ ওভারে দাঁড়ায় ৭ রানে।

শেষ ওভারের প্রথম বলেই ডেনিয়েল ক্রিস্টিয়ানকে পেছনে স্কুপ করে শর্ট থার্ড ম্যানের মাথার উপর দিয়ে বাউন্ডারি হাঁকান।

এতেই জয়ের সমীকরণ সহজ হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত দুই বল আগেই জিতে যায় নাইটরা। উইনিং রান আসে সাকিবের ব্যাট থেকেই।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে ৬ বলে ৯ রান করেন সাকিব। অধিনায়ক মরগান ৭ বলে ৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

এছাড়াও কলকাতার হয়ে এদিন সর্বোচ্চ রান করেন শুভমন গিল। ১৮ বলে ২৯ রান করেন এই ওপেনার।

এর আগে এদিন কলকাতার হয়ে বোলিংয়ে কোন উইকেট না পেলেও ৪ ওভারে মাত্র ২৪ রান দেন সাকিব।

বল হাতে নাইটদের হয়ে সবচেয়ে সফল নারাইন। ৪ ওভার বোলিংয়ে ২১ রানে ৪ উইকেট নেন তিনি।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

ম্যাচ শেষে কলকাতার অধিনায়ক সাকিবের প্রশংসা করেন এবং নিজে ও সাকিব কেনো শেষের দিকে ব্যাটিংয়ে নামেন তার কারণ ব্যাখ্যা করেন।

তিনি বলেন, “উইকেট আজকে যেমন ছিল তা থেকে আমরা বুঝতে পেরেছিলাম আমাদের শেষেও ভাল অভিজ্ঞ ব্যাটার দরকার হবে। প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত আমরা ভাল করতে চেয়ে ছিলাম। উইকেট কেমন আচরন করছে তা বুঝে আমরা খেলতে চেয়েছি। এবং আমরা তাই করেছি।”

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.