সালমান খান ও ঐশ্বরিয়া রাইয়ের প্রেমকাহিনি বলিউডের ঘাসে-বাতাসে লেগে আছে। কোনোদিনই হয়তো এই দুই তারকার সম্পর্কের গল্প-রূপকথার রোমাঞ্চ পুরনো হবে না। একদিন যে দুজন ছিলেন দুজনের নয়নমণি সে তারাই আজ কেউ কারোর মুখ দেখেন না।

তবে তাদের সম্পর্কের এই বৈরিতায় ক্ষতিটা শুধু তাদের দুজনের হয়নি। তার প্রভাব পড়েছে আরও অনেক অনেকের উপর। ক্ষতি হয়েছে আদতে বলিউডেরই। যেমন বেশ জনপ্রিয় জুটি সালমান-ঐশ্বরিয়াকে মিস করেছে হিন্দি সিনেমার দর্শক।

এমনকি শাহরুখ-ঐশ্বরিয়া জুটি ভক্তরাও বঞ্চিত হয়েছেন একটি সিনেমা থেকে। আনন্দবাজার পত্রিকা এক প্রতিবেদনে দাবি করেছে, ব্রেকাপের আগে আগে দুজনের মধ্যে মনোমালিন্য যখন ডালপালা মেলছিলো তখন ঐশ্বরিয়া চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন শাহরুখ খানের সুপারহিট ‘চলতে চলতে’ সিনেমায়। শুটিংও শুরু করেছিলেন অ্যাশ।

কিন্তু একদিন ছবির সেটে গিয়েই ঝামেলা শুরু করেন সালমান। এতে খুব বিরক্ত হন শাহরুখ। রেগে গিয়ে ঐশ্বরিয়াকে বাদই দিয়ে দেন তিনি। তার পরামর্শেই পরে রানি মুখার্জিকে নায়িকা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন পরিচালক। শাহরুখের এই আকস্মিক সিদ্ধান্তে রানি খুশি হলেও ব্যথিত হয়েছিলেন ঐশ্বরিয়া।

সালমানের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর এক সাক্ষাৎকারে ঐশ্বরিয়া বলেছিলেন, শাহরুখের সঙ্গে তাকে সন্দেহ করতেন সালমান। সেই সন্দেহ করেই ওই ছবির সেটে গিয়ে অশান্তি করেছিলেন। আর সেটা শাহরুখকে বিব্রত ও বিরক্ত করেছিলো। শাহরুখ থেকে অভিষেক, প্রায় প্রত্যককে নিয়েই ঐশ্বরিয়াকে সন্দেহ করতেন প্রাক্তন প্রেমিক সালমান।

শুধু তাই নয়, এসব সন্দেহের জেরে রেগে গিয়ে অ্যাশের গায়ে বেশ কয়েকবার নাকি সালমান হাতও তুলেছিলেন। যদিও সালমান এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছিলেন। তার কথায়, তিনি আবেগপ্রবণ হয়ে নিজেকে আঘাত করলেও অন্য কাউকে কোনোদিন আঘাত করেননি।

‘মহব্বতে’, ‘দেবদাস’-এর মতো সফল ছবিগুলোর জুটি শাহরুখ-ঐশ্বরিয়ার জনপ্রিয়তা এখনো আকাশ ছোঁয়া। অনেকেই আক্ষেপ করেন এই দুই তারকা খুব বেশি ছবিতে জুটি হননি বলে। সেখানে ‘চলতে চলতে’ থেকে ঐশ্বরিয়ার বাদ পড়ার খবর নিশ্চয়ই সেই আক্ষেপের বেদনাটা বাড়িয়ে দেবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.